সিলেটে জল্পনার অবসান

‘কামরান চত্বর’ নামের প্রস্তাব যাচ্ছে ঢাকায়

স্টাফ রিপোর্টার, সিলেট থেকে

শেষের পাতা ২৯ জুলাই ২০২০, বুধবার | সর্বশেষ আপডেট: ২:৪৭

সিলেটে ‘কামরান চত্বর’-এর প্রস্তাবনা অনুমোদনের জন্য পাঠানো হচ্ছে ঢাকায়। সিলেট সিটি করপোরেশনের পক্ষ থেকে আনুষ্ঠানিকভাবে এই প্রস্তাবনা শিগগিরই পাঠানো হবে। সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয়ের অনুমতি সাপেক্ষে দ্রুত নগর ভবনের সামনের চত্বরকে ‘কামরান চত্বর’ নামকরণ করা হবে বলে জানিয়েছেন মেয়র আরিফুল হক চৌধুরী। গতকাল বিকেলে নগর ভবনে এক সংবাদ সম্মেলনে মেয়র এ তথ্য জানান। এর আগে দুপুরে নগর ভবনের মাসিক সাধারণ সভা বসে। ওই সভায় কাউন্সিলরদের সিদ্ধান্তক্রমে নগর ভবনের সামনের চত্বরকে ‘জনতার কামরান চত্বর’ নামকরণ করার নীতিগত সিদ্ধান্ত নেয়া হয়। এরপরপরই মেয়র আরিফুল হক চৌধুরী প্রেস ব্রিফিং করে বিষয়টি খোলাসা করেন। প্রেস ব্রিফিংয়ে মেয়র জানান- ‘সিলেটবাসীর প্রিয় নেতা ও সাবেক মেয়র বদর উদ্দিন আহমদ কামরানের মৃত্যুর পর তার নামে নগর ভবনের সামনের চত্বরকে নামকরণের প্রস্তাব এসেছিলো।
বিষয়টি আমাদের চিন্তা-ভাবনায় ছিলো। কিন্তু নামকরণ করতে হলে একটি প্রক্রিয়ার মধ্য দিয়ে যেতে হয়। এ কারণে যারা এই সৌন্দর্যবর্ধন ফলক নির্মাণে আর্থিক সহযোগিতা করেছিলো তাদের বিষয়টি মাথায় রেখেই পুরাতন নাম নগর চত্বরকে রেখেই সেটি উদ্বোধন করা হয়। এরপর এ নিয়ে দাবি উঠলে সাধারন সভায় বসেই আমরা কামরান চত্বর নামকরণের নীতিগত সিদ্ধান্ত নিয়েছি।’ এ সময় মেয়র জানান- ‘বদর উদ্দিন আহমদ কামরান জীবিত থাকা কালেই সিলেটের বিভিন্ন স্থাপনায় বিভিন্ন ক্ষেত্রে অবদান রেখে মারা যাওয়া নেতা ও ব্যক্তিদের নাম করার প্রস্তাব এসেছে। এ কারণে নগরের আরো কয়েকটি ফলকের নামকরণ করতে সিটি করপোরেশন থেকে একটি কমিটি গঠন করা হবে। এই কমিটি সবার সঙ্গে আলোচনা করে কার নাম কোথায় বসবে এ নিয়ে পরবর্তীতে প্রস্তাবনা তৈরী করবেন।’ তিনি জানান- ‘ইতিমধ্যে তার কাছে সাবেক অর্থমন্ত্রী এম সাইফুর রহমান, সাবেক মন্ত্রী দেওয়ান ফরিদগাজী, পীর হাবিবুর রহমান, আব্দুল হামিদ, আক্তার আহমদ, আফম কামাল, ম.আ মুক্তাদির, এনামুল হক বীর প্রতীক, ইফতেখার হোসেন শামীম ও সুরঞ্জিত সেন গুপ্তের নামে চত্বর নামকরণ করার প্রস্তাব এসেছে।’ এদিকে- নগর ভবনের বৈঠক এবং মেয়রের প্রেস ব্রিফিংয়ের পর সিলেটে চলমান দুই দিনের আলোচিত ঘটনার সমাপ্তি হয়েছে। এই আলোচনাটি শুরু হয়েছিলো রোববার সন্ধ্যা থেকে। ওই দিন সন্ধ্যায় মেয়র আরিফুল হক চৌধুরী নগরভবনের সামনে নির্মিত সৌন্দর্যবর্ধিত ফলকটি নগর ভবনের কর্মকর্তাদের নিয়ে উদ্বোধন করেন। এবং সিটি পয়েন্টকে তিনি নগর চত্বর ঘোষণা দিয়ে সাইনবোর্ডও লাগিয়ে দেন। এই উদ্বোধন ও নামকরণ নিয়ে সিলেটজুড়ে তোলপাড় শুরু হয়। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ঝড় বয়ে যায়। এ ঘটনার পর সিলেট আওয়ামী লীগের অঙ্গ সংগঠনের নেতারা ক্ষুব্ধ হন। তারা সোমবার দুপুরে মিছিল নিয়ে সিটি পয়েন্ট এলাকায় যায়। সেখানে তারা নগর চত্বরের সাইনবোর্ড খুলে জনতার কামরান চত্বর সাইনবোর্ড ঝুলিয়ে দেন। এ সময় সেখানে উপস্থিত ছিলেন সিলেট মহানগর আওয়ামী লীগ নেতা ও সিনিয়র কাউন্সিলর আজাদুর রহমান আজাদ। সিলেট সিটি করপোরেশনের সাবেক মেয়র ও মহানগর আওয়ামী লীগের সাবেক সভাপতি বদর উদ্দিন আহমদ কামরান গত ১৫ই জুন মারা যান। করোনাক্রান্ত হয়ে ঢাকার সম্মিলিত সামরিক হাসপাতালে ভর্তি ছিলেন তিনি। পরদিন সোমবার তার মরদেহ সিলেটে এনে মানিক পীর কবরস্থানে দাফন করা হয়। আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কমিটিতে নির্বাহী সদস্য পদে আমৃত্যু দায়িত্ব পালন করেছেন তিনি। আর সিলেট সিটি করপোরেশনের ইতিহাসে প্রথম নির্বাচনে তিনি মেয়র হয়েছিলেন। পরের দফায়ও একই পদে কারাগার থেকে নির্বাচিত হন কামরান। নিজের জীবনের প্রায় দুই ভাগ সময়ই তিনি জনপ্রতিনিধি হিসেবে কাটিয়েছেন। ১৯৫৩ সালে জন্ম নেয়া বদর উদ্দিন আহমদ কামরান মাত্র ১৯ বছর বয়সে ১৯৭২ সালে তৎকালীন সিলেট পৌরসভার কমিশনার নির্বাচিত হন। এরপর কমিশনার থেকে হন পৌরসভার চেয়ারম্যান। পৌর চেয়ারম্যান থেকে দু’বারের সিটি মেয়রও ছিলেন তিনি। সিলেটে ব্যাপক জনপ্রিয় কামরানের মৃত্যুর পর তাঁর স্মৃতি ধরে রাখার বিষয়ে জোরালো দাবি ওঠে বিভিন্ন মহল থেকে। রাজনীতিবিদ থেকে শুরু করে সাধারণ মানুষও সেই দাবিতে শামিল হন। সবার দাবির সাথে দ্বিমত করেননি বর্তমান মেয়র আরিফুল হক চৌধুরীও। কামরানের স্মৃতি ধরে রাখতে ‘কিছু একটা করা হবে’ বলে জানিয়েছিলেন তিনি। এদিকে- সিটি করপোরেশনের সিদ্বান্তের মধ্য দিয়ে সিলেটে কামরান চত্বর নাম করণের সব জল্পনার অবসান ঘটলো। নগর ভবনের এই সিদ্ধান্তকে স্বাগত জানিয়ে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে অনেকে সিটি করপোরেশনের পরিষদ ও মেয়রকে ধন্যবাদ জানিয়েছেন।

আপনার মতামত দিন

শেষের পাতা অন্যান্য খবর

করোনায় আরো ৩৩ জনের মৃত্যু, নতুন শনাক্ত ২৬৫৪

৬ আগস্ট ২০২০

দেশে গত ২৪ ঘণ্টায় করোনাভাইরাসে আরো ৩৩ জনের মৃত্যু হয়েছে। নতুন করে আরো ২ হাজার ...

জেকেজি হেলথ কেয়ার প্রতারণা

সাবরিনা-আরিফের বিরুদ্ধে চার্জশিট

৬ আগস্ট ২০২০

সিনহা হত্যা

টেকনাফের ওসিসহ সকল আসামির গ্রেপ্তার দাবি সাবেক সেনা কর্মকর্তাদের

৬ আগস্ট ২০২০

 তিন মাসের মধ্যে দ্রুত বিচার আদালতের মাধ্যমে অবসরপ্রাপ্ত মেজর সিনহা হত্যার বিচার সম্পন্ন ও দোষীদের ...

মৌলভীবাজারের দুসাই রিসোর্ট

কারণ ছাড়াই বন্ধ করতে চান ডিসি!

৫ আগস্ট ২০২০



শেষের পাতা সর্বাধিক পঠিত