করোনা রোগী সাহাবউদ্দিনের সঙ্গে নির্মমতা-

মৃত্যুর আগে বাইরে থেকে দরজার ছিটকানি লাগিয়ে দেন স্ত্রী-সন্তান, পানি চেয়েও পাননি

নাজমুল হক শামীম, ফেনী থেকে

বাংলারজমিন ২ জুন ২০২০, মঙ্গলবার | সর্বশেষ আপডেট: ৪:০৬

ফেনীর সোনাগাজীতে করোনাভাইরাস সংক্রমণের উপসর্গ জ্বর, কাশি ও শ্বাসকষ্ট নিয়ে বদ্ধ ঘরে মৃত্যু হওয়া সাহাব উদ্দিনের (৫৫) মৃত্যুর পূর্বে বীভৎস চিত্র প্রকাশ পেয়েছে। মৃত্যুর আগে পরিবারের লোকজন তাঁকে ঘরে একা রেখে বাইরে থেকে দরজার ছিটকিনি লাগিয়ে রাখে। দেওয়া হয়নি দুপুরে খাবার। মৃত্যুর সময় পানি চেয়েও পায়নি। মৃত্যুর পরও কাছে আসেননি স্ত্রী, ছেলে–মেয়ে ও জামাতাসহ কোন স্বজন। মৃত্যুর পর পায়নি স্থানীয় মসজিদের খাটিয়া, কেউ দেয়নি কবর খোঁড়ার কোদালও।

মতিগঞ্জ ইউনিয়ন পরিষদের (ইউপি) চেয়ারম্যান মো. রবিউজ্জামান মৃত সাহাব উদ্দিনের ছোট ছেলের বরাত দিয়ে জানান, রোববার হাসপাতালে গিয়ে কোভিড–১৯ আক্রান্ত কি না, তা পরীক্ষার জন্য নমুনা দিয়ে আসেন। দুপুরে বাড়িতে আসলে পরিবারের লোকজন তাঁর সঙ্গে খারাপ ব্যবহার শুরু করেন। এসময় তাঁকে শয়নকক্ষে রেখে বাইরে থেকে দরজায় ছিটকিনি লাগিয়ে রাখেন পরিবারের সদস্যরা।
এর পর থেকে পরিবারের কেউ সাহাব উদ্দিনের সঙ্গে কথা বলেননি। দুপুরে তাঁকে খাবারও দেননি। বিকেলে তাঁর শ্বাসকষ্ট ও কাশি বেড়ে যায়। এ সময় তিনি চিৎকার করে খাবার চাইলেও কেউ দেননি। ছোট ছেলে এগিয়ে যেতে চাইলে তাঁকে বোনেরা বাধা দেন। এভাবে চিৎকার করতে করতে রাত ১০টার দিকে সাহাব উদ্দিনের মৃত্যু হয়। রাতে সাড়াশব্দ না পেয়ে পরিবারের লোকজন জানালা দিয়ে উঁকি দিয়ে দেখেন তিনি মারা গেছেন। এরপর সবাই যাঁর যাঁর ঘরের দরজা বন্ধ করে ভেতরে ঢুকে যান। পরে ছোট ছেলে 'বাবা মারা গেছে' বলে চিৎকার শুরু করেন।

মতিগঞ্জ ইউনিয়ন পরিষদের (ইউপি) ৭ নম্বর ওয়ার্ডের সদস্য ফেরদৌস রাসেল বলেন, 'সাহাব উদ্দিনের বাড়ি থেকে চিৎকারের শব্দ শোনার বিষয়টি একজন প্রতিবেশী চেয়ারম্যানকে জানান। পরে রাত একটার দিকে গ্রামপুলিশ নিয়ে চেয়ারম্যান সহ আমরা কয়েকজন ওই বাসায় গিয়ে উপস্থিত হই। অনেক ডাকাডাকির পর ওই বাড়ির লোকজন মূল দরজা খুলে দিয়ে যাঁর যাঁর কক্ষে চলে যান। বাড়ির একটি কক্ষে সাহাব উদ্দিনকে রেখে বাইরে থেকে ছিটকিনি লাগানো ছিল। ছিটকিনি খুলে আমরা ভেতরে বীভৎস দৃশ্য দেখতে পাই। সম্ভবত সাহাব উদ্দিনের শ্বাসকষ্ট উঠেছিল এবং তিনি তা সহ্য করতে না পেরে মাটিতে গড়াগড়ি করেছিলেন। তাঁর পরনের কাপড় খোলা অবস্থায় পাশে পড়েছিল।'

ইসলামী আন্দোলনের করোনা রোগে দাফন টিমের এক সদস্য জানান, দাফন জন্য মধ্যরাতে ইসলামী আন্দোলনের করোনা রোগে দাফন টিমকে খবর দেন চেয়ারম্যান। দাফন টিমের সদস্যদের জন্য উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স থেকে পিপিই (পার্সোনাল প্রটেক্টিভ ইক্যুইপমেন্ট) ও থানা থেকে মরদেহ রাখার জন্য একটি ব্যাগ সংগ্রহ করে দেন। লাশ দাফন করার জন্য স্থানীয় মসজিদ থেকে খাটিয়া আনতে লোক পাঠালে মসজিদ কমিটির লোকজন খাটিয়া দিতে অস্বীকৃতি জানান ও কবর দিতে বাধা দেন। কবর খোঁড়ার কোদালও দিচ্ছেন না কেউ। মরদেহ গোসল করানোর জন্য সমাজের পর্দাও না দেয়ার ঘোষণা দিয়েছে সমাজপতিরা। পরে চেয়রাম্যান নিজের টাকায় কাপনের কাপড় কিনে, সমাজপতি, গ্রামের লোকদের অনেকটা বুঝিয়ে খাট ও পর্দার কাপড়, কোদাল সংগ্রহ করেন। গ্রাম পুলিশ ও ইসলামী আন্দোলনের লোকদের সাথে নিয়ে জানাজা শেষে পারিবারিক কবরাস্থানে মৃত ব্যক্তির লাশ দাফন করেন চেয়ারম্যান। কবর খোঁড়া, জানাজা ও দাফন কাজে অংশ নেন চেয়ারম্যান সহ ৭জন ব্যক্তি। দাফন করে চলে আসার সময় ছোট ছেলেটি তার বাবার জন্য সবার কাছে দোয়া চান।

ইউপি চেয়ারম্যান রবিউজ্জামান জানান, মতিগঞ্জ ইউনিয়নের ভাদাদিয়া এলাকার বাসিন্দা সাহাব উদ্দিন দীর্ঘদিন ধরে চট্টগ্রামে একটি পেট্রলপাম্পে চাকরি করতেন। কিছুদিন আগে সাহাব উদ্দিনের শ্বাসকষ্ট দেখা দেয়। একই সঙ্গে জ্বর ও কাশি ছিল। স্থানীয়ভাবে চিকিৎসা নিয়ে তিনি সুস্থ হয়ে যান। হঠাৎ অসুস্থ হয়ে গত বুধবার রাতে চট্টগ্রাম থেকে বাড়িতে আসেন। গত শনিবার রাত থেকে তাঁর শ্বাসকষ্ট, জ্বর ও কাশি বেড়ে যায়। এর পরদিন রোববার সকালে তিনি হাসপাতালে গিয়ে কোভিড–১৯ আক্রান্ত কি না, তা পরীক্ষার জন্য নমুনা দিয়ে আসেন। সাহাব উদ্দিনের স্ত্রী, তিন ছেলে, তিন মেয়ে ও তিন জামাতা রয়েছেন। দুই ছেলে কাজের সূত্রে গ্রামের বাইরে থাকেন। মৃত্যুর সময় বাকিরা সবাই বাড়িতে ছিলেন।

এদিকে এ ব্যাপারে সাহাব উদ্দিনের পরিবারের সদস্যদের সঙ্গে একাধিকবার যোগাযোগ করা হলেও তাঁরা কেউ কথা বলতে চাননি।

চেয়ারম্যান আরো জানান, সাহাব উদ্দিন পেট্রোল পাম্পে কর্মরত থেকে চার ভাইকে প্রবাসে পাঠিয়ে প্রতিষ্ঠিত করেছেন। তিনটি মেয়ে বিয়ে দিয়ে জামাইদের প্রতিষ্ঠিত করেছেন। নিজেও বহু অর্থ সম্পদের মালিক হয়েছেন। টাকা পয়সা রোজগার করে সারা জীবনের উপার্জন দিয়ে পরিবারের সদস্য ও স্বজনদের জন্য অনেক কিছু করেছেন। অথচ মহান আল্লাহ তার এমন একটি মৃত্যু দিয়েছেন শেষ বিদায়ে কোন স্বজন তার পাশে নেই। এর চেয়ে হৃদয় বিদারক আর কি হতে পারে? মহান আল্লাহর কাছে দোয়া করি কোন শত্রুকেও যেন তিনি এমন মৃত্যু না দেন। এই মৃত্যু থেকে পৃথিবীর সব মানুষ শিক্ষা নেয়া উচিৎ। আসলে কার জন্য এই উপার্জন আর অর্থবিত্ত রেখে যাওয়া? করোনার এই মহামারিতে মানবতাও যেন আজ থমকে গেছে!

উপজেলা স্বাস্থ্য কর্মকর্তা উৎপল দাস বলেন, রোববার সকালে সাহাব উদ্দিন নিজেই হাসপাতালে এসে নমুনা দিয়ে যান। তিনি জানান, সোনাগাজী উপজেলায় এ পর্যন্ত দুই চিকিৎসকসহ ২১ জন কোভিড–১৯–এ আক্রান্ত হয়েছেন। মতিগঞ্জ ইউনিয়ন করোনাভাইরাস সংক্রমণের উপসর্গ নিয়ে দুজনের মৃত্যু হয়েছে।

পাঠকের মতামত

**মন্তব্য সমূহ পাঠকের একান্ত ব্যক্তিগত। এর জন্য সম্পাদক দায়ী নন।

A S Azad

২০২০-০৬-০৫ ০৪:৫০:৪৩

আল্লাহ আমাদের মনুষ্যত্ব ও মানবতার বিচারক, তিনি সব দেখেন ও জানেন, নিশ্চয়ই আল্লাহ মরহুমের শহীদী মৃত্যু কবুল করবেন, আমিন।

হাফিজুর রহমান

২০২০-০৬-০৩ ০৮:৪২:৪৪

আল্লাহ আমাদের সবচেয়ে ভালবাসেন।আমাদের জন্য সবচেয়ে ভালটা তিনি করেন।বর্তমান পরিস্থতিতে কাউকে দোষারোপ করে লাভ নাই।আমাদের প্রাথমিক ধারনাটাত এভাবে দেয়া হয়েছে।

Mortuza Hussain Chiu

২০২০-০৬-০৩ ০৮:২১:২২

Father is not attended by his son and daughters due to covid fear is absolutely undesirable. This is not the teachings of Islam. May Allah grant him Jannat. Regards, Mortuza

Kiaum

২০২০-০৬-০৩ ০৭:১৮:৪২

তার শেষ সময় পরিবারের লোকজন তার সাথে এমন একটি অমানবিক কাজ করেছে,তার জন্য তার সমস্ত সম্পদ থেকে বঞ্চিত করে, এই সময় যারা নিজেদের ও পরিবারের কথা চিন্তাভাবনা না করে করোনা আক্রান্তদের পাশে দাড়িয়েছে তাদের মাঝে বন্টন করে দেওয়া।এই রকম একটা দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির ব্যবস্থা করলে, যারা এরকম করে তারা সোজা হয়ে যাবে।

ফরহাদ হোসেন

২০২০-০৬-০৩ ০৩:৫৬:৪০

মৃত ব্যাক্তির মৃত্যুর পূর্বের এবং পরের ঘটে যাওয়া ঘটনার বর্ননা এতটাই মর্মান্তীক যে এর প্রতিক্রিয়া জানানোর কোন ভাষা নাই ! তবে ঐ পরিবারের সকল সদস্যদের আইনি ব্যাবস্থা নেয়া এবং এলাকাবসীকেও জবাবদীহির মুখোমুখি করা উচিৎ । পাশাপাশি আর যেন একটি মানুষকেও এমন লোমহর্ষক পরিস্হিতিতে পরতে না হয় সেজন্য আজ এবং এখন থেকেই সরকারি ভাবে জন উদ্ভুদ্দকরণ প্রচারণা করা উচিত । যেমন মাইকিং লিফলেট বিতরণ ইত্যাদি ।

ZAHIDUL ISLAM

২০২০-০৬-০২ ২০:০০:৪৬

এরকম কুসন্তানদের জ্যান্ত পুঁতে ফেলা হোক।এটাই হবে ওদের উচিৎ সাজা।

নুসরাতজাহানজলি

২০২০-০৬-০২ ১৯:০৪:৫৩

এত খারাপমানু! তাদেরএর চেয়ে কঠিন মৃত্যু হওয়া উচিত

এটা একটা হত্যার সামি

২০২০-০৬-০২ ১৮:৩৫:৫৩

বিচার চাই

রবিউল

২০২০-০৬-০২ ১৬:৪৯:১১

উনার কু সন্তান দের সাস্তি হওয়া উচিত

Ahsan Ullah

২০২০-০৬-০২ ১৫:৫৮:২৭

এই ঘটনা প্রমান করে দিল সময়ে আপন মানুষ কিভাবে পর হয়ে যায়। এই দুনিয়টাই স্বার্থপ।

শাহা‌নেওয়াজ

২০২০-০৬-০২ ১৪:১৭:৫৭

‌নির্মম হত্যাকান্ড, বিচার হওয়া দরকার ।

মুহাম্মদ নঈম উদ্দিন

২০২০-০৬-০২ ১১:৩৭:৩৮

অত্যন্ত হ্নদয় বিদারক। আল্লাহ উনাকে জান্নাতের উচ্চ মকাম দান করুন। তবে উনার মৃত্যু কষ্টের সময় যারা সাড়া দেননি তাদের আইনের আওতায় আনা দরকার।

আতিক উল্লাহ

২০২০-০৬-০২ ১১:৩২:৫৪

হায়রে!! কাদের জন্য এই বৃদ্ধ এতো কিছু করলেন!! আর তারাই নির্মমতা দেখালো। করোনা হয়ছে বলে যে পরিবার সেবাও দেয় না; এরা পরিবার নয়; সাক্ষাত জানোয়ারের দল। জানোয়ারেরও তো দয়া মায়া থাকে!! এরা তো পশুর চেয়েও খারাপ।

শাহরিয়ার আহমেদ

২০২০-০৬-০২ ১০:৩৮:২৮

হত্যাকাণ্ডের শামিল। এর বিচার হওয়া প্রয়োজন।

Kazi Ali Hossain

২০২০-০৬-০২ ১০:২১:৪৭

পরিবারের জানোয়ার সদস্যগুলোকে একটু সারাদেশে দেখেন। এদের মানুষের ধিক্কার পাওয়া প্রয়োজন।

Rumana Ferdousy

২০২০-০৬-০২ ০৯:০৩:৫১

এটা একটা হত্যা কাণ্ডের শামিল, যারা এই হত্যা কাণ্ডে জড়িত তাদের উপযুক্ত শাস্তি দাবি করছি।

md. shohid ullah

২০২০-০৬-০২ ২১:৫৭:৫৩

নিজের প্রিয়তমা স্ত্রী,সন্তানেরা যে এত বড় অমানুষ হতে পারে; তাহা কল্পনা ও করা যায়না। যাদের জন্য সারাজীবন এত কষ্টকরে পেট্রলপাম্পের কাজ করেএত সম্পদ টাকা পয়সা রোজগার করেছেন।আজ তার এই বিপদের দিনে তার সাথে এই অমানবিক আচরণ কোন সভ্য সমাজে হতে পারে না। জনাব শাহাব উদ্দিন ভাইকে স্ত্রী সন্তানেরা মেরে ফেলেছেন। ছৈাট ছেলে বাদে বাকী ছেলে মেয়েদের এবং তার স্ত্রী এবং জামাতাদের শাস্তি হওয়া উচিত। তাদেরকে আইনের আওতায় এনে কঠোর শাস্তি দেয়া দরকার বলে মনে করি। বাহিরের দরজা আটকিয়ে ভিতরে লোকটাকে তারা সবাই মেরে ফেললো। মূত্যর পূর্বে পা পানি করে চিৎকার করে ও কেউ পানি পর্যন্ত দেয়নি। আল্লাহ তাকে বেহেসতবাসি করুন। আমিন। আল্লাহর কাছে এই কামনাই করি।

Mosharrof mintu

২০২০-০৬-০২ ০৮:৩৫:১০

স্বার্থের কাছে আপন জন বলে কিছু নেই! পৃথিবী একটি মরিচিকা।

Shohrub

২০২০-০৬-০২ ০৮:৩২:৩২

90% ধর্মপ্রাণ মুসলমানের দেশ বলে কথা। যাদের অগাধ বিশ্বাস আল্লাহ তাদের করোনার গজব দিতেই পারে না। ওনার সাথে তার নিজের চেলে মেয়েরা যা করেছে তা নিকৃষ্টতম ইহুদীরাও করবে না। ভবিষ্যতে হয়ত কারো করোনার সম্ভাব্যতা দেখা দিলে ডাক্তারের কাছে যাওয়ার আগে আত্মীয় স্বজন মিলে পিটায়ে মেরে ফেলবে। আফসোস...

মুন্সি মো: আবদুস সাত

২০২০-০৬-০২ ০৮:০১:৫০

মরহুমের আত্নার শান্তি কামনা কামনা করছি,আল্লাহ যেন উনাকে জান্নাত বাসী করে,আমিন। উনার সন্তান, স্ত্রী সহ যাহারা উনার সাথে এই ধরনের আচরন করেছেন, সরকারি ভাবে উনার। সব সম্পত্তি ক্রোক করে এতিমখানা মসজিদে দিয়ে দেওয়া হো।

Nafisul Islam

২০২০-০৬-০২ ০৭:৫৬:২৫

Eta ofcourse ekti hottakando, tar wife, meye, ar tader jamaider arrest kore tar shompod attoshater bichar korte Hobe, eta clear murder

আঃ মালেকরেজা

২০২০-০৬-০২ ০৭:৩৯:৫৪

এ সকল সন্তানেরা মানুষ নামের কলঙ্ক। ওদের এর চেয়েও ভয়াবহ অবস্থা হতে পারে।

‌মোঃ মুনছু

২০২০-০৬-০২ ০৭:৩০:১২

এটা ্রকটা সুস্পষ্ট হত্যকান্ড। অপরাধ বি‌বেচনায় নি‌য়ে তা‌দের‌কে আই‌নের আওতায় আনা হোক। লোকটা‌কে হত্যা করা হ‌য়ে‌ছে। মানুষ কত পাষন্ড হয়। মস‌জি‌দের খাট , না দেওয়া দাফন কর‌তে বাধা দেওয়া এগু‌লো কোন মুসলমা‌নের কাজ না। ্ররা ধ‌র্মের নাম বে‌চে আর মস‌জি‌দে গি‌য়ে নামায প‌ড়ে, ঐ মস‌জি‌দে কোন মুসলমা‌নের যাওয়া উ‌চিৎ নয় ব‌লে আ‌মি ম‌নে ক‌রি।

মিলন

২০২০-০৬-০২ ০৭:২৬:২২

শিক্ষা নিলাম

মো: ইয়াকুব আলী

২০২০-০৬-০২ ০৭:০৮:৫৩

আমি হতাশ ৷

Dulal Khan

২০২০-০৬-০২ ০৬:৪৫:৪৬

হতবাক হুলাম

এ কে এম সাইদুর রহমান

২০২০-০৬-০২ ১৯:৪০:১৮

এটা একটা হত্যা কাণ্ডের শামিল, যারা এই হত্যা কাণ্ডে জড়িত তাদের উপযুক্ত শাস্তি দাবি করছি। হতে পারে তাদের কেউ যদি এমন অসুস্হ্য হয় ? আমি একজন সচেতন নাগরিক। মানিক গঞ্জ বাসীর পক্ষ আমাদের এ দাবী।

Mustafa Zaman

২০২০-০৬-০২ ০৬:২৭:০৯

Mr. Shahabuddin I Allah tumi jannater uchcho morzada dan koro r unar poribarer lok gulo k tumi ki korba ta tumi ii zano ...bcs, tumi mohan bicharok..

রকিবুল ইসলাম

২০২০-০৬-০২ ০৬:২২:৪৪

তার আপনজন কি কেউ কোনদিন মরবে না! এই অসুখটি আসলে আমাদের অনেক কিছুই শিখিয়ে দিয়ে গেলো।

মেহেদী হাসান

২০২০-০৬-০২ ০৬:২০:৪১

মরহুমের বউ, ঐ ছেলেরা( ছোট ছেলে বাদে) এবং মেয়েদের কে মরহুমের সমপত্তি থেকে ওয়ারিসহীন করা হোক।

মিয়াজী জসীম

২০২০-০৬-০২ ০৬:০৬:১৫

একজন বাবা, শশুর এবং স্বামী হিসেবে কিছুই ত পেলোনা শেষ বেলায় তাহলে ওই পরিবারের যা অর্থ রয়েছে সব কিছুই ত ওনার উপার্জনের এগুলো বিলিয়ে দেওয়াই বেষ্ট...

Humauin kabir

২০২০-০৬-০২ ০৫:৩২:০৯

আসলে বিশ্বাস করতে পারছিলাম না । ঘটনা কি আদৌ এ রকম ? এমন মন মানসিকতার মানুষ আসলেই আছে ? জানি না , তবে সৃস্টিরর্তাই জানেন মানুষরুপি অন্য কোন প্রানী আছে কিনা ? আল্লাহ আপনি আমাদের ক্ষমা করুন সবাইকে ।

Masood hossain

২০২০-০৬-০২ ০৫:০৩:০০

অনতিবিলম্বে এ পরিবারের সদস্যদের কে আইনের আওতায় এনে সকলের জন্য দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দেওয়া হোক

Masood hossain

২০২০-০৬-০২ ০৫:০১:১৯

অনতিবিলম্বে এ পরিবারের সদস্যদের কে আইনের আওতায় এনে সকলের জন্য দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দেওয়া হোক

মোঃ আসাদুজ্জামান চৌধ

২০২০-০৬-০২ ০৪:৩৯:১৬

একেবারে সহজ সরল একজন লোক ছিলেন,সাহাব উদ্দিন কে আমি মামা বলে ডাকতাম,ওনি ভাটিয়ারী তে মিক্কু ফিলিং স্টেশনে চাকুরী করতেন,ওনাকে আমি ২০০৯ থেকে চিনি,আমি তাঁর বিদেহী আত্মার মাগফেরাত কামনা করছি,মহান রাব্বুল আলামিন তাঁর জীবনের গুনাহ গুলোকে ক্ষমা করে নাজাত দিক,সাথে এ ও বলছি সারাটা জীবন যাদের জন্য ব্যয় করলো তারা তাঁর মৃত্যুর সময় এমন আচরণ না করলে ও পারতো,এটি একটি পরিকল্পিত হত্যাকান্ড,তাঁর স্ত্রী, পুত্র,কন্যা- জামাতা সবাই কে আইনের আওতায় আনার জন্য প্রশাসনের কাছে মিনতি করছি।

বদর উদ্দিন চৌধুরী

২০২০-০৬-০২ ০৩:৪৮:৫৩

এটি হত‍্যা যজ্ঞ ঘঠনার সমতুল‍্য।এদেরকে ফৌজদারী আইনের আওতায় আনা হউক।

ইসমাইল

২০২০-০৬-০২ ০৩:৪৫:১২

অনতিবিলম্বে এ পরিবারের সদস্যদের কে আইনের আওতায় এনে সকলের জন্য দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দেওয়া হোক

ইসমাইল

২০২০-০৬-০২ ০৩:৪৩:৪৪

আল্লাহ তুমি আমাদেরকে এ জাতীয় মৃত্যু থেকে হেফাজত করো। তার পরিবারের সদস্যরা যে আচরণ করেছে এটা কোন ভাবে কাম্য নয় আমরা তাদের শাস্তির দাবি করছি

বদর উদ্দিন চৌধুরী

২০২০-০৬-০২ ০৩:৪১:৩৭

মৃত ব‍্যক্তির অর্জিত সম্পদ (সম্পতি) ছোট ছেলেকে দেওয়ার পর অবশিষ্ট রাষ্ট্রের কোষাগারে নেওয়ার আবেদন রহিল,যেহেতু পরিবারের সদস্যরা অমানবিক আচরণের সাজা প্রাপ্ত দরকার।

Alamgir Hossen

২০২০-০৬-০২ ০৩:৩৭:০৯

ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ এর সকল কর্মকাণ্ড মিডিয়া তুলে ধরা উচিৎ। ইসলামী শাসনব্যবস্থা থাকলে এমন হতো না।

Quazi KamruL

২০২০-০৬-০২ ০৩:৩৬:১৭

আমরা যারা ছেলে মেয়ে বউ নিয়ে পাগল হচ্ছি তাদের একটু বুঝা উচিত? দুনিয়াটা এমন এক জায়গা এখানে চোখ বন্ধ করলে কেউ কারওনা? সম্পদ কিছু কিছু দান করা উচিত যাতে পরকালে জন্য কাজে আসে! ওনার ছেলে মেয়ে যা করছে তারা কিন্তু মোটে ঠিক করে নি ?মহান আল্লাহর লীলা খেলা বুঝা বড় মুসকিল কালের বিবর্তনে ওনার বাবা সাথে যা কিছু ঘটেছে হয়ত সে রকম ঘটনা যারা দুরে ছিল তাদের উপর ঘটতে পারে?

মাহির চৌধুরী

২০২০-০৬-০২ ০৩:৩১:৩৮

আমাদের স্বল্প হায়াতের এই দিনের বাস্তব অবস্থা যদি এ হয়, তাহলে অসীম হায়াতের সেই দিনের কি অবস্থা হবে আমাদের? যেই দিনের কথা মহান "আল্লাহ" পবিত্র কোর'আন এর সুরা 'আবাসার' মধ্যে বলেছে..... অতঃপর যেদিন কর্ণবিদারক নাথ আসবে। সেই দিন মানুষ পলায়ন করবে তার ভাইয়ের কাছ থেকে, তার পিতা-মাতার কাছ থেকে, তার পত্নী ও সন্তানদের কাছে থেকে। সদিন প্রত্যেকেরই এক নিজের এক চিন্তা থাকবে, যা তাকে ব্যতিব্যস্ত করে রাখবে। (সুরা:আবাদা, আয়াত ;৩৩-৩৭)

Md Ripon Hossain

২০২০-০৬-০২ ০৩:২০:০২

এর চেয়ে নির্মম মৃত্যু আর কি হতে পারে যে সারাজিবন নিজের পরিবারের জন্যে উৎসর্গ করে দিলেন আর কিনা তার কষ্টের সময় সবাই তাকে দুর দুর করে তাড়িয়ে দিয়েছে। তবে পৃথিবীটা এমন আপনি যে কাজ করবেন তার প্রতিদান দুইদিন আগে পরে লাভ সহ বুঝে পাবেন। বিশেষ ধন্যবাদ জানাই সে মহান রাব্বুল আলামিনের যিনি কিনা করোনা নামক মহামারি ‍দিয়ে পৃুথিবীর অনেক মানুষকে নতুন করে শিক্ষা দিয়েছেন। কাল কিয়ামতের দিন যে কেউ কাউকে চিনবেনা এটাই হলো তার জ্বলন্ত প্রমান।আসলে কেউ কারো নয় !সবই ইয়া নফসি , ইয়া নফসি!

মোঃশহিদুল ইসলাম

২০২০-০৬-০২ ০৩:১৯:৩০

মুখে ভাষা হারিয়ে ফেলেছি।

মো : মাকছুদুর রহমান

২০২০-০৬-০২ ১৫:১৯:১৪

যে অর্থ দিয়ে স্ত্রীকে সুখে রেখেছে, ছেলে ও মেয়েদেরকে প্রতিষ্ঠিত করেছেন। তার সাথে এমন নির্মম আচারণ করেছে। তাদের আইনের আওতার এনে কঠিন বিচার করা উচিত। সরকারের কাছে এর বিচার চাই। শুধু টাকা টাকা করোনা। সন্তানদের সু মানুষ বানাও।

এবিএম আখতারুল ইসলাম

২০২০-০৬-০২ ০২:০৬:১০

পরিবারের সকলের শাস্তি হওয়া উচিত।

akmshamsuddin1979@gm

২০২০-০৬-০২ ০২:০১:৪৪

পরম করুনাময় মহান আল্লাহ তায়ালার কাছে ফরিয়াদ করি যে এমন ভয়াবহ মৃত্যু যেন আর কারো না হয়।

আলী মুহাম্মদ মহসীন

২০২০-০৬-০২ ০১:৩৬:১৮

এরই নাম নিয়তি ! সবাইকে মৃত্যুর জন্য প্রস্তুত থাকতে হবে ।

আলী মুহাম্মদ মহসীন

২০২০-০৬-০২ ০১:৩৪:০০

এরই নাম নিয়তি! এ থেকে সবাইকে শিক্ষা নেয়া উচিৎ

সাংবাদিক মারুফ জাহান

২০২০-০৬-০২ ১৩:৫১:৩৫

এটা একটা হত্যা।। দেশের প্রচলিত ফৌজদারী আইনে স্ত্রী সন্তানদের বিচার চাই।। যাতে অন্যরা কেউ এমন করতে সাহস না পায়।। শুধু মানবতা মানবতা বলে মুখে কুলুপ এঁটে বসে থাকলে চলবে না।। ব্যবস্থা নেয়া জরুরী।।।

Kazi

২০২০-০৬-০২ ০০:২৯:১১

প্রতিটি মৃত্যু আমাদের জন্য শিক্ষনীয়। ১। মানুষ মরণশীল । এখানেই মৃত্যুর পর ভবিষ্যত জীবনের কর্মফল তৈরির ক্ষেত্র। ২। পাপকর্মের মধ্য দিয়ে বৌ সন্তানদের জন্য প্রাচুর্যময় জীবনের ব্যবস্থা করে নিজের পাপের বোঝাই সঙ্গে নিতে নাই। এরা কেউ আপন নয়। বৌ সন্তানরা তাই প্রমাণ করল। এবং শুদু এই ঘটনা নয়। বহু ঘটনা প্রতিদিন খবরে আসছে। কেউ কবরের পাশেও যেতে চায় না। পুলিস আর সমাজ সেবকবৃন্দ লাশ দাফন করেন। শত বছর পর পর এই শিক্ষা দিতেই মহামারী আল্লাহ পাঠান ।

হাসান সিদিদকী

২০২০-০৬-০২ ০০:১৯:৩০

যদি সাহাব উদিদন সাহেব সতি্যই সবার জন্য এত কিছু করার পর ও তারা তাকে শেষ মুহুর্তের জন্য একটু ও দয়া করে নাই, তার বিচার আললাহ্ করবেন সেটা আমাদের বলা সনভব নয় । কিন্তু আপাতত দৃশিটতে বলতে পারি এরা সবাই চরম ক্ষতির সনমুক্ষিন হবেন । আমারা তার দোয়া করি আললাহ্ তাহলা তাকে জান্নাত নসিব করুন । আমিন

MD. ISAHAK ALI

২০২০-০৬-০২ ১৩:১১:০২

They sholud be taken under the law. It's a Killing.

alauddin

২০২০-০৬-০১ ২৩:৫৮:৪১

এমন স্ত্রী আল্লাহ যেন কোন পুরুষকে না দেয় এসব ছেলে মেয়ে একদিন এর ফল পাবে

Selina

২০২০-০৬-০১ ২৩:৫৮:১২

Very sad..... appearing to distort family and social system.......

Mahbub

২০২০-০৬-০২ ১২:৫৩:৫৯

মানবতা আজ বিপণ্ন, স্ত্রী- সন্তানেরা কিভাবে এমন অমানবিক হয়,কল্পনায় আসে না,সত্যিই বলছি মনে হচ্ছে কেয়ামত অতি সন্নিকটে, এই মানুষগুলো কি একবারও ভাবেনি কাল তারা কেউ আক্রান্ত হলে তাদের কি হবে? চেয়ারম্যান সাহেবকে স্যালুট, এরকম জনপ্রতিনিধি সব উপজেলায় চাই। এরকম নির্মম আচরণ কারীদের বুঝানো দরকার,যদি তাতে কাজ না হয় শাস্তির আওতায় এনে বুজাতে হবে,এইটা সবার হতে পারে,তাই বলে অমানবিক হওয়া যাবে না। সবাইকে মরতে হবে,নিয়ম মেনে সাবধানে চলতে হবে কিন্তু মানবতাকে বিসর্জন দেয়া যাবে না।

মো: রফিকুল ইসলাম

২০২০-০৬-০২ ১২:৪৪:০৪

এর থেকে আমাদের শিক্ষা নিতে হবে। আমরা কার জন্য মিথ্যা, চুরি, ডাকাতি, প্রতারনা করছি। কেন সুদ, ঘুষ খাচ্ছি। সাহাব উদ্দিন কষ্ট করে টাকা রোজগার ভাই, জামাতাদেরকে আর্থিক ভাবে প্রতিষ্ঠিত করে গিয়েছেছেন এবং স্ত্রী ও সন্তানদেরকে আর্থিক সুরক্ষার জন্য বিপুল পরিমান টাকা জমা করে গিয়েছেন। শেষ সময় তার কাছে কেউ ছিলেন না এটা দু:খজনক। তবে এটাই সত্য কেউ কারো নয়। মহান আল্লাহ এটাই বুঝাইয়াছেন করানার মাধ্যমে। তোমরা কেন কার জন্য খারাপ কাজ করে টাকা রোজগার করো কেউ তোমার সাথে যাবে না। অতএব আমাদের সকলকে শিক্ষা এটা শিক্ষা নিতে হবে।

মঈন

২০২০-০৬-০১ ২৩:৩৭:২৫

মৃত ব্যক্তির , ছেলেমেয়েদের আইনের আওতায় আনা হউক।।ওদের দৃষ্টান্তমুলক শাস্তি হওয়া উচি। ওই বেটার স্ব সম্পত্তি ওদের থেকে কেড়ে নিয়ে আন্জুমানে দান করার জোর দাবি জানা।

এমরাম

২০২০-০৬-০১ ২৩:৩৬:৩৩

মরহুম শহীদী মর্যাদা পাক এই দোয়া করি। সাথে সাথে ওনার পরিবারের সকল সদস্যদের ছবি দেখতে চাই।

Md.Mokter Hossain

২০২০-০৬-০২ ১২:৩৪:৪৮

এর চেয়ে নির্মম মৃত্যু আর কি হতে পারে যে সারাজিবন নিজের পরিবারের জন্যে উৎসর্গ করে দিলেন আর কিনা তার কষ্টের সময় সবাই তাকে দুর দুর করে তাড়িয়ে দিয়েছে। তবে পৃথিবীটা এমন আপনি যে কাজ করবেন তার প্রতিদান দুইদিন আগে পরে লাভ সহ বুঝে পাবেন। বিশেষ ধন্যবাদ জানাই সে মহান রাব্বুল আলামিনের যিনি কিনা করোনা নামক মহামারি ‍দিয়ে পৃুথিবীর অনেক মানুষকে নতুন করে শিক্ষা দিয়েছেন। কাল কিয়ামতের দিন যে কেউ কাউকে চিনবেনা এটাই হলো তার জ্বলন্ত প্রমান।আসলে কেউ কারো নয় !সবই ইয়া নফসি , ইয়া নফসি!

Md. Harun Al-Rashid

২০২০-০৬-০২ ১২:৩৪:০৪

ঐ মানুষরুপী জানোয়াদের তো কিছু বলে লাভ নেই। সমবেদনা ছোট ছেলেটির জন্য। সৎভাবে রোজগার করেও সাহাবুদ্দীনের ভাগ্যে কি ঝুটলো। আর ঐ চাল চোর দূর্নীতিবাজ বাপ মায়েরা দেখুক যে সন্তান নামক জানোয়ারগুলির জন্য জীবনপাত করা হয় তার পরিনতী কি হতে পারে।

মুহম্মদ জানে আলম চৌধ

২০২০-০৬-০১ ২৩:৩২:৩৯

অত্যন্ত দুঃখ ও বেদনা দায়ক মৃত্যু। কুল্লু নাফসি যায়ে কাতুল মৌত।সকল প্রানীকেই মৃত্যুর স্বাধ গ্রহণ করতে হবে। কিন্তু সারা জীবন কষ্ট করে যেই পরিবারের সদস্যদের মুখে হাসি ফুটিয়েছেন, তারাই জন্মদাতা পিতার মৃত্যুর সময় এক্টু সহায়তার হাত না বাড়িয়ে নজেদের কে সুরক্ষায় রেখেছেন। এর চেয়ে অমানুবিক আর কিছুই হতে পারে না।

Sakhawat Hossain

২০২০-০৬-০২ ১২:২৬:০৫

Allah a kemon sojon jara sammanno tomo nitibod tukuo vhule jai. চেয়ারম্যান আরো জানান, সাহাব উদ্দিন পেট্রোল পাম্পে কর্মরত থেকে চার ভাইকে প্রবাসে পাঠিয়ে প্রতিষ্ঠিত করেছেন। তিনটি মেয়ে বিয়ে দিয়ে জামাইদের প্রতিষ্ঠিত করেছেন। নিজেও বহু অর্থ সম্পদের মালিক হয়েছেন। টাকা পয়সা রোজগার করে সারা জীবনের উপার্জন দিয়ে পরিবারের সদস্য ও স্বজনদের জন্য অনেক কিছু করেছেন। অথচ মহান আল্লাহ তার এমন একটি মৃত্যু দিয়েছেন শেষ বিদায়ে কোন স্বজন তার পাশে নেই। এর চেয়ে হৃদয় বিদারক আর কি হতে পারে? মহান আল্লাহর কাছে দোয়া করি কোন শত্রুকেও যেন তিনি এমন মৃত্যু না দেন। এই মৃত্যু থেকে পৃথিবীর সব মানুষ শিক্ষা নেয়া উচিৎ। আসলে কার জন্য এই উপার্জন আর অর্থবিত্ত রেখে যাওয়া? করোনার এই মহামারিতে মানবতাও যেন আজ থমকে গেছে!

মো:হক

২০২০-০৬-০১ ২৩:২৫:৫১

সংসারে যে উপার্জ্ন করে সবার উপকার করল।আজ শেষ বিদায় বেলা তার প্রতি পরিবার স্বজনদের এ রুপ ব্যবহার সত্যিই দুখ:জনক।মৃত ব্যক্তির প্রতি সন্মান প্রদর্শন করার জন্য মহান আল্লাহর নির্দেশ আছে।ঐ পরিবারের সবাইকে কিন্তু যেতে হবে।

সুষমা

২০২০-০৬-০১ ২২:৩২:২১

কে বলতে পারে এর চেয়েও অধিক যন্ত্রনার মৃত্যু ঐ মৃত ব্যক্তির স্বজনদের জন্য অপেক্ষা করছে না???প্রত্যেককেই মরতে হবে এটাই ধ্রুব সত্য।কিন্তু এই মৃত ব্যক্তির সাথে ঘোরতর আর চরম অন্যায় হয়েছে।বিধাতা নিরপেক্ষ।নিশ্চয়ই-ই তিনি এই অন্যায়ের বিচার করবেন।

আপনার মতামত দিন

বাংলারজমিন অন্যান্য খবর

আদালতের জব্দকৃত ২৫৫ বস্তা পচা ডাল গায়েব

৮ জুলাই ২০২০

রাজশাহীর পুঠিয়ায় উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ওলিউজ্জামানের নেতৃত্বে একটি চাতাল মিলে ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করা হয়। ...

সাদুল্লাপুরে বজ্রপাতে শিশুর মৃত্যু, আহত ২

৮ জুলাই ২০২০

গাইবান্ধার সাদুল্লাপুর উপজেলায় বজ্রপাতে মোজাহিদ মিয়া (১২) নামে এক শিশুর মৃত্যু হয়েছে। এ ঘটনায় আহত ...

চন্দনাইশে ছেলের ছুরিকাঘাতে বাবা খুন !

৮ জুলাই ২০২০

চট্টগ্রামের চন্দনাইশ উপজেলার বরমা ইউনিয়নের কেশুয়ায় পারিবারিক কলহের জের ধরে ছেলের হাতে খুন হলেন বাবা ...

সিলেটে করোনায় মারা গেলেন বিএনপি নেতা ড. ইনামের পিতা

৮ জুলাই ২০২০

সিলেটে করোনায় মারা গেলেন বিএনপি নেতা পিতা মুজিবুল হক চৌধুরী। তিনি বিএনপির চেয়ারপার্সনের উপদেষ্টা ড. ...

শ্যামনগরে ১৩টি ভারতীয় গরু আটক

৮ জুলাই ২০২০

গোপন সংবাদের ভিত্তিতে সাতক্ষীরার শ্যামনগর থানা পুলিশ গতকাল রাতে উপজেলার বংশীপুর গ্রামের লতিফ গাজীর বাড়ি ...

ওসমানীনগরে আরও একজনের করোনা শনাক্ত

৭ জুলাই ২০২০

সিলেটের ওসমানীনগরে নতুন করে আরো একজন করোনা আক্রান্ত হয়েছেন। আজ ...



বাংলারজমিন সর্বাধিক পঠিত