মৃত্যু ও শনাক্তের নতুন রেকর্ড একদিনে মৃত্যু ২২, শনাক্ত ১৭৭৩

স্টাফ রিপোর্টার

প্রথম পাতা ২২ মে ২০২০, শুক্রবার

গত ২৪ ঘণ্টায় দেশজুড়ে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে ২২ জন মারা গেছেন। এই সময়ে ১৭৭৩ জনের দেহে করোনার সংক্রমণ পাওয়া যায়। এ নিয়ে মোট আক্রান্তের সংখ্যা দাড়িয়েছে ২৮ হাজার ৫১১  জনে। গতকাল দুপুরে স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের নিয়মিত অনলাইন স্বাস্থ্য বুলেটিনে এ তথ্য জানান, অধিদপ্তরের অতিরিক্ত মহাপরিচালক  (প্রশাসন) অধ্যাপক ডা. নাসিমা সুলতানা। দেশে একদিনে মৃত্যু ও শনাক্তের এটাই সর্বোচ্চ সংখ্যা।
তিনি জানান, ৪৭টি ল্যাবে ২৪ ঘণ্টায় নমুনা সংগ্রহ করা হয়েছে ১০ হাজার ২৬২টি। পরীক্ষা করা হয়েছে ১০ হাজার ২৭৪টি। পরীক্ষা করা নমুনার মধ্যে ১ হাজার ৭৭৩ জনের দেহে করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ পাওয়া যায়।
এ নিয়ে মোট আক্রান্তের সংখ্যা ২৮ হাজার ৫১১ জন। এছাড়া গত ২৪ ঘন্টায় করোনায় আরো ২২ জনের মৃত্যু হয়। এ নিয়ে মোট মৃতের সংখ্যা দাড়ালো ৪০৮ জন।
নাসিমা সুলতানা বলেন, গত ২৪ ঘণ্টায় সুস্থ হ?য়েছেন ৩৯৫ জন। এ নি?য়ে সুস্থ হয়ে ওঠা রোগীর সংখ্যা দাড়ালো ৫ হাজার ৬০২ জ?নে। তিনি আরো জানান, নতুন করে যারা মারা গেছেন, তাদের ১৯ জন পুরুষ, তিনজন নারী। বয়সের দিক থেকে ১১ থেকে ২০ বছরের দু’জন, ত্রিশোর্ধ্ব একজন, চল্লিশোর্ধ্ব দু’জন, প াশোর্ধ্ব ১০ জন, ষাটোর্ধ্ব তিনজন, সত্তরোর্ধ্ব দু’জন এবং ৮১ থেকে ৯০ বছর বয়সী দু’জন। এদের মধ্যে ১০ জন ঢাকা বিভাগের, আটজন চট্টগ্রাম বিভাগের, তিনজন সিলেট বিভাগের এবং একজন ময়মনসিংহ বিভাগের। ঢাকা বিভাগের মধ্যে রাজধানীর আটজন, ঢাকা জেলার একজন ও নারায়ণগঞ্জের একজন বাসিন্দা। চট্টগ্রাম বিভাগের মধ্যে চট্টগ্রাম জেলার চারজন, চাঁদপুরের তিনজন ও কক্সবাজারের একজন। সিলেট বিভাগের মধ্যে সিটি করপোরেশনের একজন এবং অন্যান্য জেলার দু’জন। আর ময়মনসিংহ বিভাগের যিনি মারা গেছেন তিনি ময়মনসিংহ শহরের বাসিন্দা।
স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের এই কর্মকর্তা বলেন, গত ২৪ ঘণ্টায় আইসোলেশনে নেয়া হয়েছে আরো ১৫৪ জনকে এবং বর্তমানে আইসোলেশনে রয়েছেন ৩ হাজার ৮৯৭ জন। গত ২৪ ঘণ্টায় আইসোলেশন থেকে ছাড় পেয়েছেন ৭৩ জন এবং এ পর্যন্ত ছাড় পেয়েছেন ১ হাজার ৯৬৬ জন।
তিনি আরো জানান, গত ২৪ ঘণ্টায় হোম ও প্রাতিষ্ঠানিক মিলিয়ে কোয়ারেন্টিনে নেয়া হয়েছে চার হাজার ৩২ জনকে। এ পর্যন্ত কোয়ারেন্টিনে নেয়া হয়েছে ২ লাখ ৫৫ হাজার ৫৩৩ জনকে। গত ২৪ ঘণ্টায় কোয়ারেন্টিন থেকে ছাড় পেয়েছেন ২ হাজার ৫৯১ জন। এ পর্যন্ত মোট ছাড় পেয়েছেন ২ লাখ ১ হাজার ১৫২ জন। বর্তমানে হোম ও প্রাতিষ্ঠানিক মিলিয়ে কোয়ারেন্টিনে রয়েছেন ৫৪ হাজার ৩৮২ জন। দেশের বিভিন্ন জেলা-উপজেলা পর্যায়ে প্রাতিষ্ঠানিক কোয়ারেন্টিনের জন্য ৬২৬টি প্রতিষ্ঠান প্রস্তুত রয়েছে। এসব প্রতিষ্ঠানের মাধ্যমে তাৎক্ষণিকভাবে সেবা দেয়া যাবে ৩১ হাজার ৮৪০ জনকে
যুক্তরাষ্ট্রভিত্তিক জরিপ সংস্থা ওয়ার্ল্ডোমিটার বলছে, বিশ্বজুড়ে এখন পর্যন্ত করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে মারা গেছেন (প্রতিবেদন লেখার সময়) ৩ লাখ ২৯ হাজার ৯০৩ জন । এছাড়া আক্রান্তের সংখ্যা ৫১ লাখ ১ হাজার ৪৭৬ জন। অন্যদিকে সুস্থ হয়েছেন ২০ লাখ ৩৩ হাজার ৬৭৬ জন।

আপনার মতামত দিন

প্রথম পাতা অন্যান্য খবর

ঈদ শুভেচ্ছা

২৩ মে ২০২০

ছুটির নোটিশ

২৩ মে ২০২০

পবিত্র ঈদুল ফিতর উপলক্ষে ২৩ থেকে ২৭শে মে দৈনিক মানবজমিন অফিস বন্ধ থাকবে। ২৪ থেকে ...



প্রথম পাতা সর্বাধিক পঠিত