৯৫টি বাসে ২৩৬৮ জন পড়ুয়াকে রাজস্থান থেকে আনা হচ্ছে পশ্চিমবঙ্গে

কলকাতা প্রতিনিধি

কলকাতা কথকতা ১ মে ২০২০, শুক্রবার

জয়েন্ট এন্ট্রান্স-সহ বিভিন্ন প্রতিযোগিতামূলক পরীক্ষার প্রস্তুতি হিসেবে রাজস্থানের কোটায় একাধিক প্রতিষ্ঠানে প্রশিক্ষণ নিতে গিয়েছিলেন পশ্চিমবঙ্গের কয়েক হাজার পড়ুয়া।  তবে করোনা ভাইরাস মোকাবিলায় লকডাউন ঘোষণার পর সেখানে আটকে  পড়েছিলেন তাঁরা। তাদের ফিরিয়ে আনার জন্য পড়ু–য়ারা এবং তাদের অভিভাবকরা বারে বারে সরকারের কাছে আবেদন করেছিলেন। তবে এতদিনে ভারত সরকার অন্য রাজ্যে আটকে থাকাদের সড়ক পথে ফিরিয়ে আনার অনুমতি দিয়েছে। এরপরই পশ্চিমবঙ্গ সরকার কোটা থেকে ৯৫টি বাসে ২৩৬৮ জন পড়ুয়াকে রাজ্যে নিয়ে আসার ব্যবস্থা করেছে। সড়ক পথে ১৭০০ কিলোমিটার অতিক্রম করতে যে দিন-তিনেক সময় লাগবে, তা আগেই জানিয়েছিলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। তবে মানবিকতার স্বার্থে মুখ্যমন্ত্রীই যে গোটা বিষয়টি তদারকি করছেন সেকথাও নিজেই জানিয়েছিলেন। মুখ্যমন্ত্রী আরও জানিয়েছিলেন, অন্য রাজ্য থেকে  পড়ুয়াদের ফেরাতে চেষ্টায় কোনও ত্রুটি হবে না । সেই মত বুধবার রাজস্থানের কোটা থেকে আটকে থাকা ২৩৬৮ জন পড়ুয়াকে নিয়ে রওনা দিয়েছিল ৯৫টি বাস।
আজ  শুক্রবারই বাসগুলি পশ্চিমবঙ্গের কলকাতা, শিলিগুড়ি এবং আসানসোল পৌঁছাবে বলে জানা গেছে। রাজ্যে প্রবেশ করার পর পড়ুয়াদের  সরকারি ব্যবস্থায় নিজেদের বাড়ি পৌঁছে দেওয়া হবে। জানা গেছে, কোটায় বাসে ওঠার আগে পড়ুয়াদের সকলের শারীরিক পরীক্ষা করা হয়েছিল। বৃহস্পতিবার বাসগুলি  লখনউতে পৌঁছনোর পরও ফের পরীক্ষা করা হয়। রাজ্যে পৌঁছনোর পরও হেলথ-স্ক্রিনিং করা হবে পড়ুয়াদের। রাজ্য সরকারের পাশাপাশি লোকসভার কংগ্রেস দলনেতা তথা বহরমপুরের সাংসদ অধীর চৌধুরীও বেশ কয়েক দিন ধরেই সক্রিয় হয়েছিলেন কোটা থেকে বাংলার পড়ুয়াদের রাজ্যে ফিরিয়ে আনার বিষয়ে। রাজস্থানে কংগ্রেসের সরকার থাকার সুবাদে তাঁর পক্ষে যোগাযোগ করা অপেক্ষাকৃত সহজ হয়েছিল। এদিকে গুজরাটের আহমেদাবাদে প্রশিক্ষণ নিতে গিয়ে বেশ কয়েকজন ছাত্র আটকে রয়েছেন। তারাও সরকারের কাছে রাজ্যে ফিরিয়ে আনার জন্য আবেদন করেছেন।

আপনার মতামত দিন

কলকাতা কথকতা অন্যান্য খবর

কলকাতা কথকতা

লাদাখে ভারত-চীন মুখোমুখি

২৭ মে ২০২০



কলকাতা কথকতা সর্বাধিক পঠিত