বশেমুরবিপ্রবির ইতিহাস বিভাগের অনুমোদনের দাবিতে জবিতে সংহতি সমাবেশ

জবি প্রতিনিধি

শিক্ষাঙ্গন ১৮ ফেব্রুয়ারি ২০২০, মঙ্গলবার

গোপালগঞ্জের বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ে (বশেমুরবিপ্রবি) ইতিহাস বিভাগ চালু রাখার দাবিতে সংহতি প্রকাশ করে মানববন্ধন করেছেন জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের (জবি) ইতিহাস বিভাগের শিক্ষক ও শিক্ষার্থীরা।

আজ মঙ্গলবার  (১৮ ফেব্রুয়ারি) বিশ্ববিদ্যালয়ের শহিদ মিনারের পাদদেশে মানবন্ধনের মাধ্যমে  সংহতি সমাবেশ করেন তারা।

ইতিহাস বিভাগের ৩য় বর্ষের শিক্ষার্থী মো রোবেল মিয়ার সঞ্চালনায় বিভাগের সহকারী অধ্যাপক আবদুল্লাহ মান্নান হাওলাদার, আফসানা আহমেদ, আবদুস সামাদ ও শহিদ কাদেরী চৌধুরীসহ প্রায় দুই শতাদিক শিক্ষার্থী সংহতি সমাবেশে  অংশগ্রহণ করেন।

শহিদ কাদেরী চৌধুরী বলেন, ‘ বশেমুরবিপ্রবিতে প্রশাসন অনুমতিহীন মোট ৮টি বিভাগ চালু করেছিলেন সেখানে বিভিন্ন সময়ে ৭টি বিভাগের অনুমোদন দেওয়া হলেও একমাত্র দেওয়া হয় নি ইতিহাস বিভাগের। ইউজিসির সাবেক চেয়ারম্যান বলেছেন প্রতিটি বিশ্ববিদ্যালয়ে ইতিহাস বিভাগ বাধ্যতামুলক করা হবে।তিনি আরো বলেন উক্ত বিশ্ববিদ্যালয়ে বাংলা,ইংরেজি বিভাগ চালু থাকলে ইতিহাস বিভাগ কেন নয়।'

২০১৬-১৭ বর্ষের শিক্ষার্থী  আসাদুল ইসলাম বলেন, 'বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরি কমিশনের অনুমতি না নিয়ে বিভাগ চালু করা প্রশাসনের অপরাধ।এই শাস্তি দিতে হলে দিতে হবে প্রশাসনকে,৪১৩ জন শিক্ষার্থীকে নয়।'

তিনি আরো বলেন ইতিহাস একটি বিজ্ঞান সেটা অনেক আগ থেকেই প্রমাণিত। এখন সময় এসেছে ইতিহাস বিভাগকে বিজ্ঞান হিসেবে স্বীকৃতি দেওয়ার সুতরাং এমন সময়ে বশেমুরবিপ্রবিতে এই বিভাগের অনুমোদন না দেওয়া অযৌক্তিক।

উল্লেখ্য, ২০১৭ সালে বশেমুরবিপ্রবির  তৎকালীন উপাচার্য অধ্যাপক খন্দকার নাসিরুদ্দিন ইউজিসির অনুমতি না নিয়েই বাশেমুরপ্রবিতে ইতিহাস বিভাগ চালু করেন। যেখানের বর্তমান ছাত্র-ছাত্রীদের সংখ্যা প্রায় ৪১৩ জন। গত ৭ ফেব্রুয়ারিতে বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরি কমিশন সেই বিভাগের অনুমোদন না দিয়ে নতুন করে শিক্ষার্থী ভর্তি না করানোর নির্দেশ দেন।তবে এর আগে, যেসব শিক্ষার্থী ভর্তি রয়েছেন তাদের অনুমোদন দেওয়া হবে বলেও জানিয়েছেন কর্তৃপক্ষ কিন্তু  ইতিহাস বিভাগটি চালু রাখার ব্যাপারে তাদের অনীহা প্রকাশ করেছেন।  

এইদিকে বিভাগটি চালু রাখার দাবিতে  প্রশাসনিক ভবনে তালা ঝুলিয়ে অনির্দিষ্টকালের জন্য আন্দোলনে নামেন ইতিহাস বিভাগের শিক্ষার্থীরা পরে বিভিন্ন বিভাগের শিক্ষার্থীরাও তাদের সমর্থন জানিয়ে আন্দোলনে যোগদান করেন।।

আপনার মতামত দিন



শিক্ষাঙ্গন অন্যান্য খবর

প্রধানমন্ত্রীর লেখা চিঠি পৌঁছে যাবে আজকেই

১৭ই মার্চের প্রাথমিকের সকল কর্মসূচি বাতিল

১৬ মার্চ ২০২০



শিক্ষাঙ্গন সর্বাধিক পঠিত



প্রধানমন্ত্রীর লেখা চিঠি পৌঁছে যাবে আজকেই

১৭ই মার্চের প্রাথমিকের সকল কর্মসূচি বাতিল