প্রেমের টানে জৈন্তাপুরে ভারতীয় খাসিয়া নারী হুলুস্থুল

শেষের পাতা

ওয়েছ খছরু, সিলেট থেকে | ১৭ অক্টোবর ২০১৯, বৃহস্পতিবার | সর্বশেষ আপডেট: ১:১৯
কারেংশু খাসিয়ার জন্য রেগে গেলেন ভারতের শিলং রাজ্যের ডাউকি এলাকার খাসিয়ারা। কারেংশুকে ফেরত না দিলে তারা ধরে নেয়া বাংলাদেশি ও শতাধিক গরু ছাড়বে না। মঙ্গল ও বুধবার দু’দফা বৈঠকে তারা বিজিবি-বিএসএফ-কে এ কথা জানিয়ে দিয়েছে। কিন্তু সিলেটের জৈন্তাপুর সীমান্তের বাংলাদেশিরা অসহায়। কারেংশু খাসিয়াকে খুঁজে পাওয়া যাচ্ছে না। সঙ্গে জৈন্তাপুরের প্রেমিক ফিরোজও লাপাত্তা। তাদের খুঁজে পাওয়া যাচ্ছে না, এ কারণে ধরে নেয়া আবদুন নূর ও শতাধিক গরু ফেরত মিলছে না। এ নিয়ে গত ৫ দিন ধরে জৈন্তাপুর সীমান্তে উত্তেজনা বিরাজ করছিলো।
অবশেষে গতকাল সন্ধ্যায় খোঁজ মিলেছে কারেংশু খাসিয়ার। মৌলভীবাজারের জুড়ি পুলিশ কারেংশুকে পেয়েছে। রাতে তাকে জৈন্তাপুর নিয়ে আসা হয়েছে। আজ দিনের যেকোনো সময় পতাকা বৈঠকের মাধ্যমে হতে পারে এ উত্তেজনা সুরাহা।

স্থানীয়রা জানিয়েছেন- শতাধিক গরু ও ধরে নেয়া নূর উদ্দিনের জন্য অস্থির হয়ে উঠেছেন সবাই। এ কারণে গতকাল পতাকা বৈঠকের মাধ্যমে বিএসএফ খাসিয়াদের প্রতি অনুরোধ জানিয়েছে যে, ধরে নেয়া মানুষ ও গরুর কোনো ক্ষতি না করতে। ভারতীয় খাসিয়ারা এ ব্যাপারে বিজিবি ও জৈন্তাপুর সীমান্তবাসীকে আশ্বস্ত করেছে। কারেংশু খাসিয়া। বয়স ৪০ কিংবা ৪২ বছর। ৫ সন্তানের জননী। কয়েক মাস আগে তিনি এক সন্তানের মা হয়েছেন। স্বামী চংকর খাসিয়া। বাড়ি ভারতের শিলং রাজ্যের ডাউকির নিকটবর্তী হেওয়াই এলাকায়। সীমান্তঘেঁষা তাদের বাড়ি। সীমান্তের ওপারে সিলেটের জৈন্তাপুরের টিপারখাল এলাকার যুবক ফিরোজ মিয়া। সেও বিবাহিত। এক সন্তানের জনক। তার পিতা হারিছ উদ্দিন ওরফে আনাই মিয়া। স্থানীয়রা জানিয়েছেন- গত শনিবার বিকালে ফিরোজ মিয়া সীমান্ত এলাকায় কাজ করার সময় কারেংশু খাসিয়া তার কাছে চলে আসে। এরপর থেকে তারা দু’জনই নিরুদ্দেশ। তাদের কোনো খোঁজ পাওয়া যাচ্ছিলো না। বিষয়টি নিয়ে টিপরাখাল এলাকায় কানাঘুষা চলে। শেষে বিষয়টি ভারতীয় খাসিয়ারা বিএসএফকে জানায়।

বিএসএফ বিষয়টি বিজিবি’কে অবগত করলেও তাদের কোনো সন্ধান পাওয়া যায়নি। এই অবস্থায় মঙ্গলবার দুপুরে ভারতীয় সশস্ত্র খাসিয়ারা জৈন্তাপুরের টিপরাখাল এলাকায় এসে শতাধিক গরু ধরে নিয়ে যায়। গরু সহ আবদুন নূরকে ধরে নিয়ে যাওয়ার পর স্থানীয়দের মধ্যে উত্তেজনা ছড়িয়ে পড়ে। পতাকা বৈঠকের মাধ্যমে বিজিবির ক্যাম্পের সদস্যরা বিএসএফ’র কাছে এ ঘটনার প্রতিবাদ জানান। এ সময় বিজিবি’র পক্ষ থেকে ধরে নেয়া মানুষ ও গরু ফিরিয়ে দেয়ার দাবি জানানো হয়। কিন্তু ভারতীয় খাসিয়ারা বিজিবি ও বিএসএফকে জানিয়ে দেয় কারেংশু খাসিয়াকে ফেরত না দিলে তারা ধরে নেয়া আবদুন নূর ও গরু ফেরত দেবে না। এদিকে- মঙ্গলবারের বৈঠকের পর ফিরোজ ও কারেংশুর খোঁজ করতে থাকে প্রশাসন সহ এলাকার মানুষ। বিকালে ফিরোজের ভাইয়ের মধ্যস্থতায় জুড়ী থানার কাছে কারেংশুকে রেখে পালিয়ে যায় ফিরোজ। পরে স্থানীয় পুলিশ কারেংশু খাসিয়াকে উদ্ধার করে জৈন্তাপুর থানায় পাঠিয়েছে। বিজিবি’র  জৈন্তাপুর ক্যাম্প কমান্ডার আবদুল কাদির জানিয়েছেন- এলাকার পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে রাখতে সকাল ১০টায় পতাকা বৈঠক হয়।  বৈঠকে সীমান্ত এলাকা শান্তিপূর্ণ রাখার জন্য উভয় দেশ সম্মত হয়েছে। বাংলাদেশে চলে আসা নারীকে ফেরত দেয়া, খাসিয়া কর্তৃক ধরে নিয়ে যাওয়া বাংলাদেশি সহ গরু হস্তান্তর করা হবে মর্মে শান্তিপূর্ণভাবে পতাকা বৈঠক  শেষ হয়।

এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

আপনার মতামত দিন

সৌদিতে একই দরজা দিয়ে রেস্টুরেন্টে ঢুকতে পারবে নারী-পুরুষ

চট্টগ্রাম-৮ উপ নির্বাচনে মনোনয়ন কিনলেন বিএনপির দুই নেতা

আমরা ন্যায়বিচার চাই: খন্দকার মাহবুব হোসেন

পুরুষ ক্রিকেটের জয়ে ঢাকাকে ছাড়িয়ে গেল কাঠমান্ডু

দেশীয় সংস্কৃতি কম থাকার জন্য সময়স্বল্পতাকে দুষলেন পাপন

৩৪ বছর বয়সে প্রধানমন্ত্রী হচ্ছেন সারা মারিন

লাভা উদগীরণে নিউজিল্যান্ডে নিহত ৫, নিখোঁজ অনেক

মামলাটি দ্রুত এগুচ্ছে এটিই ইতিবাচক দিক

পরিবেশ ছাড়পত্রহীন স্থাপনা অপসারণে হাইকোর্টের রুল

আজ মুখোমুখি বসছেন পুতিন-জেলেনস্কি

“শিক্ষার্থীরা বিশ্ববিদ্যালয়ে আসে জ্ঞানার্জনের জন্য, লাশ হতে নয়”

সিরাজগঞ্জে সংঘর্ষের ঘটনায় বিএনপি নেতাকর্মীদের বিরুদ্ধে মামলা, গ্রেপ্তার ৬

হারিরিই হতে পারেন লেবাননের প্রধানমন্ত্রী

উইন্ডিজদের বিরুদ্ধে হারের কারণ জানালেন কোহলি

অধ্যাপক অজয় রায় আর নেই

চুয়াডাঙ্গায় জামায়াতের ৪ সদস্য আটক